Home বাংলাদেশ পর্যাপ্ত র‌্যাব-পুলিশ-বিজিবি মোতায়েন, দায়িত্ব পালন করবেন নির্বাহী ও জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট

পর্যাপ্ত র‌্যাব-পুলিশ-বিজিবি মোতায়েন, দায়িত্ব পালন করবেন নির্বাহী ও জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট

50
0

স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিশ্চিত করে কেশবপুরে নির্বাচন স্বাস্থ্য

 

 

 

 

সুরক্ষা নিশ্চিত করে যশোর-৬ (কেশবপুর) সংসদীয় আসনে উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ করবে প্রশাসন। মহামারী পরিস্থিতি বিবেচনায় স্বাস্থ্যসুরক্ষার সবরকমের বন্দোবস্ত রেখে ভোটকেন্দ্রগুলো প্রস্তুত করা হচ্ছে। সেইসাথে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নির্বাচনী এলাকায় পর্যাপ্ত সংখ্যক ম্যাজিস্ট্রেট, র‌্যাব-পুলিশ-বিজিবি মোতায়েন করা হচ্ছে।

আর একদিন বাদে আগামী মঙ্গলবার সংসদীয় আসনটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ফলে নিয়মানুযায়ী আজ মধ্যরাত থেকে সব ধরনের প্রচারণার সুযোগ শেষ হয়ে যাচ্ছে। জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানিয়েছে, ভোটগ্রহণ শুরুর ৪৮ ঘণ্টা আগে সব ধরনের প্রচার প্রচারণা বন্ধ রাখতে হবে। সেই অর্থে সোমবার মধ্যরাত থেকে নিয়মানুযায়ী প্রচারণা চালানোর সময়সীমা শেষ হচ্ছে।
এদিকে শেষ সময়ের প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন প্রার্থী ও তার কর্মীরা। সেইসাথে চলছে ফেসবুক ও ইন্টারনেটের বিভিন্ন মাধ্যমে ভিন্ন আঙ্গিকে প্রচারণাও। গণসংযোগ, ঘরোয়া সভার ছবি ও ভিডিও ইন্টারনেটচালিত বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার চলছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, করোনার সংক্রমণ থেকে ভোটারদের স্বাস্থ্যসুরক্ষিত রাখতে প্রতিটি কেন্দ্রের প্রবেশ পথে সাবান পানির ব্যবস্থা থাকছে। সেইসাথে ভোটগ্রহণকারী কর্মকর্তাদের জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজারের বন্দোবস্ত রাখা হয়েছে। পাশাপাশি ভোটগ্রহণের দায়িত্বে নিয়োজিতদের জন্য মাস্কও সরবরাহ হয়েছে। সূত্র মতে, ভোটগ্রহণ কক্ষেও স্যানিটাইজার রাখা হবে যাতে ব্যালটে ব্যবহারের জন্য সিলটিও জীবাণুমুক্ত রাখা যায়। এছাড়া ভোটারদের বাধ্যতামূলক মাস্ক পরার বিষয়টি তদারকি করা এবং নিরাপদ দূরত্ব নিশ্চিতের জন্য ভোটার লাইনে নির্দিষ্ট দূরত্ব অন্তর গোলবৃত্ত আঁকা হবে।
এদিকে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য নিয়োজিত থাকছে। নির্বাচনী এলাকায় ২জন জুডিসিয়াল ও ১৪ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। ছয় প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন থাকবে। ১৮টি মোবাইল টিম ও ৬টি স্ট্রাইকিং ফোর্সের ৬টি টিম নির্বাচনের মাঠে সার্বক্ষণিক কাজ করবে। প্রতিটি কেন্দ্রে পুলিশ, আনসার-ভিডিপি সদস্যদের নিয়োজিত রাখা হবে। এছাড়া ভোটের দিন নির্বাচনী এলাকায় যান চলাচল বন্ধ থাকবে।
সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির জানান, ভোটগ্রহণের সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। শুধুমাত্র ব্যালট পেপার পাঠানো বাকি রয়েছে। কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ভোটের দিন সকালে কেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়া হবে।
যশোর-৬ আসনে উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণের কথা ছিল ২৯ মার্চ। তবে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে নির্বাচন স্থগিত করা হয়। এই আসনের এমপি সাবেক জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেকের মৃত্যু হলে আসনটি শূন্য হয় ২১ জানুয়ারি। ইতোমধ্যে আইনানুযায়ী উপনির্বাচন অনুষ্ঠানের প্রথম নব্বই দিন পার হয়ে যাচ্ছে। সংবিধান প্রদত্ত সিইসির হাতে থাকা পরবর্তী নব্বই দিন পার হবে যথাক্রমে ১৮ জুলাই।
এই আসনটির উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হলেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার। ধানের শীষের প্রার্থী বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আবুল কালাম আজাদ। জাতীয় পার্টির প্রার্থী আহসান হাবিব। উপনির্বাচনে প্রধান এই তিন রাজনৈতিক দলের প্রার্থীদের মধ্যে চূড়ান্ত ভোটযুদ্ধ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here